২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:০৭

মৃত্যুর কাছে হার মানলেন অগ্নিদগ্ধ অন্ত:স্বত্ত্বা গৃহবধূ জুলেখা

কুষ্টিয়া অফিস (কৃষি কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণ) ।। ভাড়াটিয়া মেহেদী হাসানের স্ত্রী জুলেখা খাতুনের শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় বাড়ির মালিকের বড় ছেলে রোকনুজ্জামান রনি। টানা এক সপ্তাহ মৃত্যুর সাথে লড়ােই করে শেষ পর্যন্ত হার মানলেন কুষ্টিয়ার অগ্নিদগ্ধ সেই অন্তঃস্বত্ত্বা গৃহবধূ জুলেখা খাতুন (৩৫)। শুক্রবার (০৮ মে) বেলা ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত জুলেখা কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার বহলবাড়ীয়া ইউনিয়নের সাহেবনগর এলাকার মেহেদী হাসানের স্ত্রী।

কুষ্টিয়া মডেল থানার (ওসি) গোলাম মোস্তফা এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বেলা ১২টার দিকে গর্ভবতী জুলেখা খাতুন নামে ওই নারীর মৃত্যু হয়েছে। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। গত ২৯ এপ্রিল সকালে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শহরের কমলাপুর এলাকার বজলুল হকের ভাড়াটিয়া মেহেদী হাসানের স্ত্রী জুলেখা খাতুনের শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় বাড়ির মালিকের বড় ছেলে রোকনুজ্জামান রনি। প্রতিবেশীরা ছুটে এসে অগ্নিদগ্ধ ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল ভর্তি করেন।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তাপস কুমার সরকার জানান, হাসপাতালে নিয়ে আসার পর দেখা যায় ওই গৃহবধূর শরীরের প্রায় ৮০ শতাংশ আগুনে ঝলসে যাওয়ায় তার অবস্থা আশংকাজনক ছিল। পরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত চারদিন আগে গৃহবধূ জুলোখা একটি মৃত সন্তান প্রসব করেন।

( সম্পাদনায়:অনলাইন নিউজরুম এডিটর )

%d bloggers like this: