২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:৫০

কুষ্টিয়ার খোকসায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

লিপু খন্দকার (কৃষি কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণ) ।। খোকসার দেবিনগর গোরস্থান পাড়ায় দবিরউদ্দিনের ছেলে ওয়াজের স্ত্রী লাভলী (২৩) এর মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। লাভলীর সারা শরীর আগুনে ঝলসানো এবং চোখ কোঠর থেকে বেরিয়ে আসলেও তার স্বামীর দাবী সে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে।

৮ বছর পূর্বে কুমারখালীর চাপরা ইউনিয়নের ভাড়রা গ্রামের ৯ নং ওয়ার্ডের মনজেদ শেখের ৪র্থ মেয়ে লাভলীর সাথে ওয়াজের প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। লাভলীর মা মারা যাবার পর তার বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে। এদিকে তাদের সম্পর্কের বিষয়টি জানাজানি হলে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। সুন্দরী ও বিনয়ী হওয়ায় ওয়াজের পরিবারের সাথে খুব সহজেই লাভলী নিজেকে মানিয়ে নেয়। বেশ কিছুদিন পূর্বে জীবিকার তাগিদে ওয়াজ মাগুরা একটি পোল্ট্রি ফার্মে কাজ নেয়। এবং একই এলাকায় লাভলী কাজের বুয়ার কাজ করতে থাকে। বিয়ের ৮ বছর অতিবাহিত হয়ে গেলেও তাদের কোন সন্তান না থাকায় মনোকষ্ট লাঘবের জন্য তাদের নিকট আত্মীয়ের সন্তান দত্তক নেয়। এভাবেই চলছিলো হটাৎ গতকাল দুপুরে ওয়াজের বোন ফোনে লাভলীর বাবাকে জানায় কারেন্টে শক্ লেগে তার মেয়ে মারা গেছে। ঘটনাস্থলে গেলে তার জামাই ওয়াজ জানায় বিষপানে তার মেয়ে আত্নহত্যা করেছে। মারা যাবার বিষয়টি ভিন্নভাবে উপস্থাপন করায় সন্দেহের উৎপত্তি হলেও হতদরিদ্র সবজি বিক্রেতা অসুস্থ লাভলীর বাবা কোন প্রতিবাদ করতে পারেননি। আজ সকালে লাশ পোস্ট মর্টেমের পর খোকসা দেবিনগর ওয়াজের বাড়িতে নিয়ে আসা হলে তার মা ও নিকট আত্নীয়ের কান্নায় বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। এলাকাবাসী লাশের ভয়ানক অবস্থা দেখে বিষপানে আত্মহত্যার বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি। এ বিষয় নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে মাগুরা থানায় ইউডি মামলা হয়েছে। খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে লাশের ভয়ানক পরিস্থিতির বিষয়টি জানালে তিনি বলেন মেয়ের অভিবাবকে বলা হয়েছে কোন সন্দেহ থাকলে মাগুরা থানায় মামলা করতে। তারপর বিষয়টি আমরা দেখবো।

( সম্পাদনায়:অনলাইন নিউজরুম এডিটর )

%d bloggers like this: