২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:৪৩

মসজিদে ঈদের নামাজ আদায়ের আহ্বান সিএমপির

ঢাকা অফিস (কৃষি কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণ) ।। ঈদগাহ বা উন্মুক্ত স্থানের পরিবর্তে মসজিদে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদের নামাজ আদায়ের আহ্বান জানিয়েছে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ (সিএমপি)।

শনিবার (২৩ মে) দুপুরে সিএমপির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, চট্টগ্রাম মহানগরীতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিধায় সরকারি সিদ্ধান্তের আলোকে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করতে নির্দেশনাসমূহ মেনে চলার জন্য মুসল্লিদের প্রতি অনুরোধ করা হচ্ছে।

১. এ বছর ঈদের নামাজ ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে নিকটস্থ মসজিদে আদায় করুন। প্রয়োজনে একই মসজিদে একাধিক জামায়াতের আয়োজন করা যাবে।

২. নামাজের সময় মসজিদে কার্পেট বিছানা যাবে না। নামাজের পূর্বে সম্পূর্ণ মসজিদ জীবানুনাশক দ্বারা পরিষ্কার করতে হবে। মুসল্লিরা প্রত্যেকে নিজ নিজ দায়িত্বে জীবাণুমুক্ত করে জায়নামাজ সঙ্গে নিয়ে আসবেন।

৩. করোনা ভাইরাস সংক্রমণরোধ নিশ্চিতকল্পে মসজিদে ওজুর স্থানে সাবান/হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে।

৪.মসজিদের প্রবেশদ্বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার/হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ সাবান ও পানি রাখতে হবে।

৫. প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসা থেকে ওজু করে মসজিদে আসতে হবে এবং ওজু করার সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে।

৬. মুসল্লিকে অবশ্যই মাস্ক এবং নিজস্ব টুপি পরে মসজিদে আসতে হবে। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না।

৭. নামাজ আদায়ের সময় কাঁতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে দাঁড়াতে হবে।

৮. এক কাতার অন্তর অন্তর কাতার করতে হবে।

৯. শিশু, বয়োবৃদ্ধ বা যে কোনো অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি ঈদের নামাজে অংশ নিতে পারবেন না।

১০. সর্বসাধারণের সুরক্ষা নিশ্চিতকল্পে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্থানীয় প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনীর নির্দেশনা অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে।

১১. নামাজ শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো পরিহার করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে নির্দেশনায়।

( সম্পাদনায়:অনলাইন নিউজরুম এডিটর )

%d bloggers like this: