১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং | ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১২:২২

বিশ্বের সবচেয়ে বড় অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন সেন্টার দিল্লিতে !

আন্তর্জাতিক ডেস্ক (কৃষি কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণ) ।। ভারতে দ্রুত হারে বাড়ছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ, রাজধানী দিল্লিতে বড় বিপর্যয়ের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এমন পরিস্থিতিতে দিল্লির সরকার ১০ হাজার বেডের অস্থায়ী কোভিড-১৯ কেয়ার ফেসিলিটি সেন্টার বানাতে শুরু করেছে। দক্ষিণ দিল্লির রাধাস্বামী আশ্রমে হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন সেন্টার, যা আকার-আয়তনে ২২টি ফুটবল মাঠের সমান।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, এই ফেসিলিটি সেন্টারের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিক হলো বেড। কার্ডবোর্ড দিয়ে তৈরি করা হয়েছে বেডগুলো। গবেষকরা বলছেন ধাতু, প্লাস্টিক ও কাঠের উপর পাঁচদিন পর্যন্ত করোনা জীবিত থাকতে পারে। কিন্তু কার্ডবোর্ডের উপর এ ভাইরাস ২৪ ঘণ্টার বেশি জীবিত থাকতে পারে না। তাই এটি জীবাণুমুক্ত না করলেও চলবে।

ছত্তরপুরের এই সেন্টারের আয়তন সাড়ে ১২ লাখ বর্গফুট, আছে ফ্যান ও সিসিটিভি ক্যামেরা। ৩ লাখ পুণ্যার্থীর সমাগম হয় এখানে। আশ্রমের কর্মকর্তা বিকাশ শেঠী জানান, সম্প্রতি অভিবাসী শ্রমিকদের আশ্রয় দেওয়া হয়েছিল সেখানে।

কেন্দ্রীয় সরকারের কোভিড ও স্বাস্থ্যসেবা বিধি মেনে এই সেন্টার তৈরি করা হবে জানান দক্ষিণ দিল্লির ম্যাজিস্ট্রেট বিএম মিশ্র। ৫০০ বেডের ২০টি মিনি হাসপাতাল বানানো হচ্ছে। ১০ শতাংশ অর্থাৎ এক হাজার বেডে অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে। তবে থাকছে না কোনও ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থা। সংকটাপন্ন রোগীদের জন্য সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের ব্যবস্থা করা হবে এই সেন্টার থেকে।

অন্তত ৪০০ জন চিকিৎসক কাজ করবেন দুই শিফটে, প্রায় দ্বিগুণ স্বাস্থ্যকর্মী তাদের সহায়তা করবেন। ৩০ জুনের মধ্যে এই সেন্টার তৈরির পরিকল্পনা কর্তৃক্ষের।

দিল্লি সরকারের পূর্বাভাস অনুযায়ী, জুলাইয়ের শেষ দিকে ৫ লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হবে রাজধানীতে। কোভিড-১৯ রোগীর জন্য প্রায় এক লাখ বেডের প্রয়োজন। সম্প্রতি ট্রেনের ৫০০ কামরা এবং হোটেল ও ব্যাংকোয়েটে করোনা রোগীদের জন্য বেড স্থাপন করার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

( সম্পাদনায়:অনলাইন নিউজরুম এডিটর )

%d bloggers like this: