৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | দুপুর ১:৫৫

ধর্ষণের ‘দৃষ্টান্তমূলক’ শাস্তি প্রকাশ্যে ফাঁসি চান ইমরান খান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক (কৃষি কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণ) ।। গত সপ্তাহে লাহোরের কাছে হাইওয়ের উপর গাড়ি থামিয়ে সন্তানদের সামনে মাকে গণধর্ষণের ঘটনায় বিক্ষোভে ফুঁসছে পাকিস্তান। ওই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় ধর্ষকের ‘উপযুক্ত শাস্তি’ বাতলে দিলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার মতে, ‘দৃষ্টান্তমূলক’ শাস্তি হিসেবে ধর্ষণের মামলার আসামীকে প্রকাশ্যে ফাঁসিতে ঝুলাতে হবে নয়তো নপুংসক করে দিতে হবে।

টিভি চ্যানেল ৯২ কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, চিহ্নিত ধর্ষকরা যেন আর ভবিষ্যতে একই অপরাধ করতে না পারে সেই ব্যবস্থা নিতে হবে। অবশ্য প্রকাশ্যে ফাঁসি দিলে আন্তর্জাতিক বিরোধিতার মুখোমুখি হওয়া লাগতে পারে বলে মনে করছেন ইমরান।

২০১৪ সালে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) দেওয়া জিএসপি-প্লাস বাণিজ্যিক সুবিধা থেকে বাদ পড়ার আশঙ্কার কথা জানালেন তিনি। কারণ প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের মতো শাস্তি মানবাধিকার লংঘন মনে করে ইইউ। ইমরান বলেছেন, ‘আমার মতে ধর্ষকদের প্রকাশ্যে ফাঁসির শাস্তি দেওয়া উচিত। কিন্তু আমার পরামর্শদাতারা বলেছেন, এমন আইন হলে ইইউর সঙ্গে বাণিজ্যে অসুবিধার মুখে পড়তে হতে পারে।’

অবশ্য ধর্ষকের বিকল্প শাস্তি হিসেবে রাসায়নিক প্রয়োগ করে চিরতরে নপুংসক করে দেওয়া যেতে পারে বলেও মনে করেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার-রাজনীতিক। দেশের ফৌজদারি দণ্ডবিধিতে যেমন খুনের ক্ষেত্রে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ডিগ্রি চিহ্নিত করে পৃথক সাজার ব্যবস্থা আছে, ধর্ষণের ক্ষেত্রেও তেমন হওয়া উচিত বললেন ইমরান।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘প্রথম ডিগ্রির ধর্ষণের ক্ষেত্রে অপরাধীকে রাসায়নিক প্রয়োগ করে নপুংসক করা প্রয়োজন। এর ফলে ভবিষ্যতে সে আর কখনও এমন অপরাধ করতে সাহস করবে না।’

যৌন অপরাধের বিরুদ্ধে শুধু পুলিশ নয়, পুরো সমাজকে লড়াই করার আহ্বান ইমরানের, ‘বিশ্ব ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখবেন, সমাজে অশ্লীলতা বেড়ে গেলে দুটি ঘটনা ঘটে: যৌন অপরাধ বেড়ে যায় এবং পারিবারিক ব্যবস্থা ভেঙে পড়ে।’

( সম্পাদনায়:অনলাইন নিউজরুম এডিটর )

%d bloggers like this: