২রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং | ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | রাত ২:৩৫

কুষ্টিয়ায় ঢাকা থেকে আসা পুলিশ কর্মকর্তা স্ত্রীসহ করোনা পজিটিভ, জেলায় মোট শনাক্ত- ২২

কুষ্টিয়া অফিস (কৃষি কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণ) ।। কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলায় নতুন করে আরও দুই জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে উপজেলাটিতে করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৯ জনে। এবং জেলায় করোনা শনাক্তের মোট সংখ্যা বহিরাগত বাদে ২২ জনে এবং সুস্থ্য হয়েছে ১০ জন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কুষ্টিয়া জেলা সিভিল সার্জন অফিস। তাঁদের বাড়ি লকডাউন করেছে প্রশাসন।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ঢাকাফেরত ট্রাফিক পুলিশের এক কর্মকর্তা ও তাঁর স্ত্রী করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। ওই কর্মকর্তা গত রোববার স্ত্রীসহ বাড়ি ফেরেন। বাড়িতে এসেই নমুনা পরীক্ষা করাতে দেন। আজ মঙ্গলবার রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে জানানো হয়, স্বামী-স্ত্রী দুজনই করোনা পজিটিভ।নতুন করে করোনা শনাক্ত দুই জন দৌলতপুর উপজেলার আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের মধুগাড়ি গ্রামের বাসিন্দা। আক্রান্ত ওই দম্পতি বর্তমানে বাড়িতেই অবস্থান করছেন।

সিভিল সার্জন জানান, আক্রান্ত পুলিশ সদস্য সোমবার ঢাকা থেকে স্ত্রী সন্তানসহ কুষ্টিয়ায় গ্রামের বাড়িতে ফেরার পর স্বাস্থ্য কর্মীরা এই দম্পতি ও তার এক সন্তানের নমুনা সংগ্রহ করেন। একই সাথে কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) ৫০ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। এদের মধ্যে এই পুলিশ দম্পতির করোনা পজিটিভ এসেছে। বাকি ৪৮টি নেগেটিভ এসেছে।

এর আগে গত ১০ এপ্রিল দৌলতপুর উপজেলার রেফায়েতপুর ইউনিয়নের কাঘাটি গ্রামের ঢাকা ফেরত আরও এক দম্পতির করোনা শনাক্ত হয়। এ উপজেলায় একের পর এক ঢাকা ফেরত দম্পতির করোনা আক্রান্তের ঘটনায় মানুষজনের মধ্যে চরম আতঙ্ক ও উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে।

জেলা পুলিশ সূত্র বলছে, পুলিশের ওই কর্মকর্তা ঢাকা মেট্রোপলিটনে কাজ করেন। তাঁদের গ্রামের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। পুলিশের ওই কর্মকর্তা গত সোমবার (১১ এপ্রিল) স্ত্রী সন্তানসহ ঢাকায় কর্মস্থল থেকে ছুটি নিয়ে কৌশলে গ্রামের বাড়িতে আসেন, এরপর নমুনা দেন। এতে স্বামী-স্ত্রী দুজনই পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। ওই পুলিশ কর্মকর্তা হৃদ্‌রোগী এবং তাঁর ডায়াবেটিস ও রয়েছে।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ পিসিআর ল্যাব থেকে ৫০ টি রিপোর্ট পাওয়া গেছে যার মধ্যে ৪৮ টি নেগেটিভ ও দুইটি পজেটিভ। এই নিয়ে কুষ্টিয়ায় অদ্যাবধি ২২ জন কোভিড রোগী সনাক্ত হল। এদিকে মিরপুর উপজেলার দুইজন রোগী হোম আইসোলেশনে চিকিৎসা নিয়ে পরপর দুইটি স্যাম্পলে কোভিড নেগেটিভ আসায় সুস্থ হয়ে ছাড় পেয়েছেন।দৌলতপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর আলী রাতে জানান, ওই দুজনের করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর পাওয়া মাত্র তাঁদের বাড়িতে গিয়ে লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন, দৌলতপুরে আক্রান্ত রোগীদের বেশির ভাগই ঢাকা ফেরত। দৌলতপুর উপজেলা নিয়ে কাল সভা করা হবে। ঢাকা থেকে আসা মানুষ ঠেকানো প্রয়োজন।

বহিরাগত বাদে জেলায় আদ্যাবধি কোভিড সনাক্ত ২২ জন।উপজেলা ভিত্তিক রোগী-দৌলতপুর- ৯, ভেড়ামারা- ২, মিরপুর- ৪, সদর- ১,কুমারখালী- ৫, খোকসা- ১সুস্থ হয়ে ছাড় পেয়েছেন ১০ জন।উপজেলা ভিত্তিক সুস্থ-দৌলতপুর- ১, ভেড়ামারা- ১, মিরপুর- ৩, সদর- ১,কুমারখালী- ২, বহিরাগত সুস্থ- ২

 

( সম্পাদনায়:অনলাইন নিউজরুম এডিটর )

%d bloggers like this: